ঐক্য বাংলা’র টানা আন্দোলনের জের – কোপা আমেরিকার সমস্ত খেলা বাংলা ভাষায় সরাসরি সম্প্রচার করার সিদ্ধান্ত নিল সোনি

0
55
ঐক্য বাংলা’র টানা আন্দোলনের জের – কোপা আমেরিকার সমস্ত খেলা বাংলা ভাষায় সরাসরি সম্প্রচার করার সিদ্ধান্ত নিল সোনি

বাঙালি এবং ফুটবল একে অন্যকে ছাড়া অসম্পূর্ণ। মান্না দে সে কবেই গানের মাধ্যমে বলে দিয়েছেন , “সব খেলার সেরা, বাঙালির তুমি ফুটবল। “

অথচ সেই ফুটবল পাগল বাঙালিকেই ফুটবলের ধারাভাষ্য শুনতে হতো ইংরেজিতে, এমনকি হিন্দিতেও।

কিন্তু বাংলার প্রথম মুক্তপন্থী বাঙালি জাতীয়তাবাদী সংগঠন ‘ঐক্য বাংলা’র ক্রমাগত চাপের জেরে, আগামীকাল থেকে শুরু হওয়া কোপা আমেরিকা প্রতিযোগিতার ম্যাচ বাংলা ভাষায় সরাসরি সম্প্রচার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সোনি কর্তৃপক্ষ।

কিন্তু এত ইস্যু থাকতে হঠাৎ এই বিষয়ে সরব হল কেন ‘ঐক্য বাংলা‘ ?

উত্তরে ‘ঐক্য বাংলা’র সাধারণ সম্পাদিকা শ্রীমতী সুলগ্না দাশগুপ্ত জানালেন, “ফুটবল ও বাঙালি একে অন্যের পরিপূরক। অথচ এই ফুটবল পাগল বাঙালি দীর্ঘ দুই আড়াই দশক ধরে ফুটবলের স্বাদ আস্বাদন করতে হচ্ছে ইংরেজি, এমনকি হিন্দি ভাষাতেও, অথচ ধারাভাষ্যের ভাষা থেকে অদ্ভূত ভাবে বাদ পড়ে যাচ্ছে বাংলা। এই বৈষম্য ঘোচাতে ও বাঙালি যাতে তাঁর নিজের মাতৃভাষায় সমস্ত ফুটবল প্রতিযোগিতা দেখতে পারে সেই জন্যেই আমরা এই বিষয়ে সরব হওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি।”

এই প্রসঙ্গে ‘ঐক্য বাংলা‘র সভাপতি ও প্রতিষ্ঠাতা সদস্য শ্রী অভিজিৎ গুহ নিয়োগী আরো যোগ করে বললেন, “ষাট, সত্তর এমনকি আশির দশকের মাঝামাঝি অবধিও বাঙালি ফুটবলের স্বাদ গ্রহণ করত বাংলা ধারাভাষ্যে। রেডিওতে অজয় বসুদের অমর বাংলা ধারা বিবরণী এক নজিরবিহীন ঘটনা যা ইতিহাসের পাতায় জায়গা করে নিয়েছে।

আরো পরুনঃ  বাঙালি জাতির উদ্দেশ্যে নিকৃষ্টতর উক্তি বিজেপির সদস্য তথা ত্রিপুরা ও মেঘালয়ের প্রাক্তন রাজ্যপাল তথাগত রায়ের

কিন্তু আশির দশকের শেষের দিক থেকেই বাঙালি তাঁর নিজের মাতৃভাষায় ফুটবল প্রতিযোগিতা দেখা থেকে বঞ্চিত। এটা কেন হবে? যে রাজ্য সবচেয়ে বেশিবার সন্তোষ প্রতিযোগিতা জিতেছে,যে রাজ্যের দুই ক্লাবের হাত ধরেই ভারতীয় ফুটবলের সামান্য পরিচিতি হয়েছে, সেই রাজ্যের ভূমিসন্তানদের ভাষাকেই ব্রাত্য করে রাখা হয়েছে কেন? “

এই সাফল্য অর্জনের জন্য কি কি পদক্ষেপ গ্রহণ করে ‘ঐক্য বাংলা’?

উত্তরে ‘ঐক্য বাংলা‘র অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ঐক্যযোদ্ধা শ্রী সৌম্য চৌধুরী বলেন, ” এই সমস্যার কথা তুলে ধরে আমরা সোনির অফিসে স্মারকলিপি প্রদান করি যদিও তারা বিভিন্ন কারণে সেই স্মারকলিপি গ্ৰহণ করে রিসিভড কপি দিতে অস্বীকার করে। এছাড়াও সোনি কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেওয়া, তাদের ক্রমাগত বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে চাপে রাখা- এই কাজগুলি করে গিয়েছি আমরা। এই সমবেত সমস্ত পদক্ষেপের ফলেই আগামীকাল থেকে শুরু হওয়া কোপা আমেরিকা প্রতিযোগিতার সমস্ত ম্যাচ সরাসরি সম্প্রচারিত হবে বাংলা ধারাভাষ্য সমেত। “

ঐক্য বাংলার অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ঐক্যযোদ্ধা রঞ্জন কুমার সাহু অবশ্য এই সাফল্যের যাবতীয় কৃতিত্ব দিয়েছেন ঐক্য বাংলার আর এক সদস্য ঐক্যযোদ্ধা যাজ্ঞ্যবল্ক সিংহকে।

আরো পরুনঃ  ব্ল্যাসফেমি না ইতিহাসের ক্ষত !!! ডক্টর বিধানচন্দ্র রায় দম্পর্কে বিতর্কিত বিরুদ্ধ প্রচার গুলি

রঞ্জন কুমার সাহু এর কথায়, “উনি এই বিষয়টা নিয়ে সেভাবে সরব না হলে, প্রতিবাদ করার কথা না জানালে, হয়তো আমরা এই বিষয়টা নিয়ে সেভাবে মাথা ঘামাতাম না এবং বাঙালি এই ক্ষেত্রেও সুপ্ত ভাবে বঞ্চিত হতে থাকত।”

ঐক্যযোদ্ধা যাজ্ঞ্যবল্ক সিংহ বলেন যে, “বাঙালি নিজের মাতৃভাষায় ধারাভাষ্য না শুনলে কে শুনবে? তাহলে বাঙালি ধারাভাষ্যকারই বা তৈরি হবে কি করে আর সাধারণ একটি বাঙালি ছেলে ফুটবলের খুঁটি নাটি গুলো বুঝবেই কি বা কি করে?

অর্থাৎ বলাই বাহুল্য বিভিন্নভাবে বিভিন্ন আঙ্গিকে লড়াই করতে তৈরি মাত্র এক বছর চার মাস বয়সী বাঙালি জাতীয়তাবাদী সংগঠন ‘ঐক্য বাংলা‘। এখন এটাই দেখার আগামী দিনে তারা কিভাবে তাঁদের এই সাফল্যের ঈর্ষণীয় ট্র্যাক রেকর্ড বজায় রাখতে সক্ষম হয় কি না।