Tuesday, June 15, 2021

শেয়ার বাজারের হাল হকিকত – 5/7/2020 – অমিত গুপ্ত

অবশ্যই পরুনঃ

বর্তমানের KOVID-19 দুর্যোগ সময়ে শেয়ার বাজারের হাল হকিকত –
মোটামুটি ভাবে ঘর বন্দী অবস্থায় ও সার্বিক ভাবে সচেতনতা বূদ্ধির শুভ প্রচেষ্টায় ও সরকারের আন্তরিক নিরবচ্ছিন্ন চেষ্টায় আমারা সচেতনতার বিষয়ে অনেকেই ইমুউন হয়ে গেছি।

তাই আসুন এবার শেয়ার বাজারের দিকে চোখ ফিরিয়ে দেখি ওখান কার কি কর্মকান্ড চলছে. প্রথমেই বলে রাখি এই লেখনীর মূল উদ্দেশ্য ব্যাঙ্কে সেভিংস এর ইন্টারেষ্ট রেট কমে যাওয়ার কারনে মিডটার্ম ইনভেষ্টর দের সাহায্য করা যাতে তাদের পুজি সুরক্ষিত রেখে মূল ধনের পরিমান বৃদ্ধি করা যায়।

নিফ্টি,সেনসেক্স বিগত সপ্তাহে প্রত্যাশা মতই তাদের গতি পথ ঠিক করে নিয়েছে বড় মাপের বৃদ্ধি না হলেও রক্ত ক্ষরন হয়নি .যার জন্যই ইনভেষ্টরদের মনে বল/সাহস রাখতে বলা হয়েছিলে যারা সেই মতন চলেছেন তারা তাদের পুঁজির ওপর লাভের দরজা খোলা রেখে আরো বেশ খানিক টা পুঁজির পরিমান চাক্ষুস করেছেন।

কেউ হয়তো সামলাতে না পেরে বিক্রি বাটা করে লভ্যাংশকে ঘরে তুলেছেন ,তা বেশ করেছেন। গত সপ্তাহে বলা হয়েছিলো গত সোমবার বাজার gapdown খুলবে কিন্তু Nifty অনেকটা recover করবে কার্য ক্ষেত্রে তাই হয়েছিলN। ifty প্রায় ২০০ পয়েন্টের মতন low করে ওখান থেকে অনেকটাই recover করে ৭০ পয়েন্ট নীচে close করেছিল। কিন্তু বলা হয়েছিলো ভয় না পেয়ে বাজারে আশা বাদী মনো ভাব বজায় রাখতে যার রেখেছেন তারা দেখেছেন নিফ্টি ঘোষিত ১০৬০০ এর দিকে যাবে ও ঠিক সেই অনুযায়ী এই শুক্রবার নিফ্টি ১০৬০৭ বন্ধ হয়েছে ।

আরো পরুনঃ  বেসরকারি হাসপাতালের নার্সরা দলবদ্ধ ভাবে রাজ্য ছাড়ছেন!
আরো পরুনঃ  মূল্য বৃদ্ধি - কঞ্জিউমার প্রাইস ইন্ডেক্স (সি পি আই) আসলে কি? সি পি আই এর নেপথ্যে - অমিত গুপ্ত

সে দিক দিয়ে ভাবলেই দেখা যাবে আগের বারের শেয়ার বাজারের হাল হকি কতে বিশ্লেষণ সঠিক মাত্রায় ছিল যা কিনা Investors দের সঠিক পথে দেখিয়াছে. অর্থাত্ এক কথায় প্রথমত বাজার বুল দেরই হাতে দ্বিতীয়ত নিফ্টি আরো দুটো Support zone তৈরি করেছে .প্রথমটি ১০৪৫০ ও দ্বিতীয়টি ১০১০০ এর কাছা কাছি।

এখন আসুন আমরা আগামী সপ্তাহের Strategy র কথা বলতে গেলে প্রথমেই উল্লেখ্য যে যদিও নিফ্টি ১০৬০০ ওর ওপর higher level closing করেছে তথাপি দিনের শেষে দেখা গেলো মার্কেটব্রেথ negative স্টকের এ্যাডভ্যান্স ডিক্লাইন্ড রেশিও ভগ্নাংশ / ১ এর কম হয়েছে অর্থাত্ আগের দিনের মানে বৃহস্পবতিবার বাজার বন্ধের সময় যে দাম ছিল শুক্রবার বাজার বন্ধের সময় তার থেকে কম দামে বন্ধ হয়েছে এরকম Stock এর সংখ্যা বেশী Stock বিক্রি হয়েছে যদিও টেকনিক্যাল চার্ট অনুযায়ী নিফ্টির ক্যান্ডল ষ্টিক ফরমেশন দেখাচ্ছে (RSI এর মান ৬৮.১,৩/৭/২০২০)ও অন্যন্য ইন্ডকেটর গুলি Buy Signal দেখাচ্ছে অর্থাত্ বাজার Over bought বা Over Sold signal প্রাথমিক ভাবে জানান দিচ্ছেনাত।

তবে এক নাগাড়ে নিফ্টির উর্ধগতিতে ছেদ করার জন্য হয়তো সামনের সপ্তাহে বাজারে একটি ছোট/ মাঝারি মাপের কারেকশনের আশঙ্কাও রয়েছে য় যদিও নিফ্টি যদি ১০৬০০ ওপর আরো অন্তত যদি এক দিন Closing দেয় তাহলে বুঝতে হবে বাজারে বুল দের পক্ষ থেকে Fresh liquidity infuse হয়েছে তাহলে বাজারের গতি পথ ১১০০০ এর দিকেই এগিয়ে যাবে যদি ১০৯০০ স্ট্রঙ্গ রেসিষ্টান্স পার করতে পারে বা যদিনা মাঝ পথে বিশ্ব বাজারে কোন বড় মাপের অঘটন না ঘটে।

আরো পরুনঃ  শেয়ার বাজারের হাল হকিকত – 26/07/2020 – অমিত গুপ্ত

তাছাড়া শেয়ার বাজারের সেন্টিমেন্ট হামেশাই পরিবর্তিত হয় ও সেসব বিষয়টা কতটা গভীর সেটা বোঝাগেলেই রহস্য ভেদ করতে সুবিধা হয় কিন্তু এটা বাস্তবিকই কঠিনতম কাজ. তাহলে Investors রা কি করবে ? আমার উত্তর কিছুই করবেনা শুধু মাঠের বাইরে বসে খেলা দেখবে কারন খেলোয়াড়রা সব সময় মাঠে খেলেনা মাঠের বাইরে বসে খেলাও দেখে আর নিজে এর পর কিভাবে খেলবে সেই রাস্তাও মনে মনে ঠিক করে।

আরো পরুনঃ  বেসরকারি হাসপাতালের নার্সরা দলবদ্ধ ভাবে রাজ্য ছাড়ছেন!

এখন যদি উল্টো হয় অর্থাত্ নিফ্টির কারেকশন শুরু হয় তখন Stop loss গুলির দিকে নজর রেখে প্রয়োজন অনুযায়ী প্রফিট বুক করতে হবে বা Digest the before witnessing many more loss in coming days।

Investors দের Stop loss গুলি আরো একবার মনে করিয়ে দিই ১০৪৫০,১০১০০,১০০০০,৯৭৫০। আশাকরা যায় বিশ্বের পারিপার্শিক পরিস্থিতি আগামী কয়েক দিনে কিছুটা সংযত হলে হয়তো শেয়ার বাজার তার নিন্মগতি রোধে সক্ষম হবে. সেক্ষেত্রে নিফ্টির হয়তে চপি ট্রেন্ডে রেজ্ঞবাউন্ড হয়ে কিছু দিন চলতে থাকবে যদিও শেয়ার বাজার ফাটকা বাজির পীঠস্থান বলে স্টক স্পেসিফিক /হাই বিটা স্টক গুলিতে যথেষ্ট Volatility থাকবে।

তাই বলছি একটা সপ্তাহ একটু খেলাধুলাই দেখেই কাটাই না ,তারপর আগামী সপ্তাহে চিত্রটা একটু পরিষ্কার হোক তখন না হয় ঠিক করা যাবে কি Strategy তে চলবো.হাতে টাকা থাকলে অনেকটাই advantage পাওয়া যাবে সেক্ষেত্রে ইনভেষ্টেরাও BYE ON DEEPS করতেই পারেন.তবে বসে বসে খেলা দেখবেন না নিজে খেলাধুলা করবেন সে সিদ্ধান্ত আপনি নিজেই নেবেন আমি শুধু মাত্র আমার ব্যক্তিগত মতামত জানিয়েছি এবং তার কারন আগের লেখায় যা লিখেছি সেটাই অর্থাত্ কোভিড ১৯ চলা কালীন অবস্থায় দেশের গুরুত্বপূর্ণ আর্থ-সামাজিক ইন্ডিকেটর যথা জিডিপি , আই আই পি , সিপিআই, স্পেন্ডিং ও মার্কেট কনফিডেন্স ইনডেক্স , এজেন্সিগুলি কতূক নির্ধারিত রেটিং এর মান ইত্যাদি কোনটিই ভাল অবস্থায় নেই।

আরো পরুনঃ  শেয়ার বাজারের কেনাকাটা

পরিশেষে Investors দের Stock বাছার জন্য কিছু টিপস দিচ্ছি যেমন প্রথম কোম্পানি র balance sheet ভাল করে study করতে হবে .দেখতে হবে নীট প্রফিট রেশিও, ও সেখান থেকে EPS বা Earnings per share হিসাব করে যে কোম্পানির EPS যত বেশি সেই সব কোম্পানিতে invest করাই ভাল বলা হয়।

আরো একটি বিষয়ে সতর্কতা আবশ্যক তা হলো কোম্পানির তা হলো কোম্পানির মুলধন সাপেক্ষে debt বা বাজারে ধারের পরিমান যদি বেশী হয় সেক্ষেত্রে ইনভেষ্টরদের এই সব স্টককে এড়িয়ে যাওয়ায় ভাল এক্ষেত্রে তার প্রাইস মুভমেন্ট চার্ট যতই আকর্ষণীয় হোক না কেন তবে ডেলি ট্রেডারস যারা সচরাচর স্টক ডেলিভারি নেন না তারা এই ধরনের স্টক নিয়েই খেলাধুলা করেন বেশি.কারন এর থেকেই তারা চটজলদি লাভের আশা করেন যদিও এটা খুবই পিছল পথ ও লোকসানের সম্ভাবনাও যথেষ্ট বেশী থাকে . এই রকম স্টকের বেশ কিছু স্টকের নাম শেয়ার বাজারের অলিন্দে ঘোরা ফেরা করে যেমন হিমাচল ফিউচারাষ্টীক ,সত্যম, ইউনিটেক,জেপি এসোসিয়েটস ইত্যাদি।

আরো পরুনঃ  শেয়ার বাজারের হাল হকিকত - 12/09/2020

ঘোষনা:- আমার বা আমার পরিবার শেয়ার বাজারের সাথে প্রত্যক্ষ ভাবে জড়িত বা স্বার্থ নেই.

- Advertisement -

আরো প্রতিবেদন

একটি মতামত জানান

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisement -

সদ্য প্রকাশিতঃ