বাঙালি জাতির উদ্দেশ্যে নিকৃষ্টতর উক্তি বিজেপির সদস্য তথা ত্রিপুরা ও মেঘালয়ের প্রাক্তন রাজ্যপাল তথাগত রায়ের

অধিকাংশ বাঙালি মহিলা যারা কর্মসূত্রে মুম্বাই যান তাঁরা অনেকেই "বার-নর্তকী "র পেশায় আছেন। এছাড়াও যে বাঙালি পুরুষকর্মীরা ভিন রাজ্যে চাকরি করতে যান তাঁরা বেশীরভাগ সাফাই কর্মী।

0
642
- বিজ্ঞাপন -

বাঙালি জাতি নিয়ে ফের একবার নিকৃষ্টতর মন্তব্য করলেন বিজেপির সদস্য তথা ত্রিপুরা ও মেঘালয়ের প্রাক্তন রাজ্যপাল তথাগত রায়।

আরো পড়ুনঃ বাঙালি জাতীয়তাবাদ শুধু আবেগ নয়, বাঁচার লড়াই

- বিজ্ঞাপন -

বিজেপির সদস্য তথা ত্রিপুরা ও মেঘালয়ের প্রাক্তন রাজ্যপাল তথাগত রায় এক সাক্ষাৎকারে আবার বললেন যে অধিকাংশ বাঙালি মহিলা যারা কর্মসূত্রে মুম্বাই যান তাঁরা অনেকেই “বার-নর্তকী “র পেশায় আছেন। এছাড়াও যে বাঙালি পুরুষকর্মীরা ভিন রাজ্যে চাকরি করতে যান তাঁরা বেশীরভাগ সাফাই কর্মী। উনি শুধু এই মন্তব্য করেই ক্ষান্ত হননি, হাস্যকর কিছু যুক্তি দিয়ে তাঁর মন্তব্যকে প্রতিস্থাপন করার চেষ্টাও করেছেন।

আরো পড়ুনঃ মমতা ব্যানার্জী র পর কে হবেন বাংলার মুখ? কে কোন স্থানে অবস্থান করছেন?

উনি এইসব অপমানজনক মন্তব্য করার আগে একবারও ভেবে দেখলেন না যে জাতির অপমান করার দায়িত্ব উনি নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন, সেই বাঙালি জাতির মানুষেরা নিজের মেধার জোরে, বিদ্যার জোরে এবং অবশ্যই পরিশ্রমের জন্য স‌্ব – স‌্ব ক্ষেত্রে আজ প্রতিষ্ঠিত দেশে-বিদেশে। উনি ভুলে গেলেন বাঙালির ইতিহাস? এই রকম নিম্নরুচির মন্তব্য করে উনি শুধু বাঙালির জাতিকে নয়, বিভিন্ন পেশায় যুক্ত মানুষকেও অপমান করলেন।

আরো পরুনঃ  সিপিআই (এম) ত্রিপুরা রাজ্যের সচিব গৌতম দাস কোভিড -১ complications জটিলতায় মারা যান

আরো পড়ুনঃ ট্রেড লাইসেন্স ছাড়াই অবৈধ ব্যবসা, ফ্ল্যাটের কমন স্পেস আটকানোর প্রতিবাদে মহিলাকে কটুক্তি।

কিছু প্রজাতির মানুষ (?) আছে যারা সবসময় কিছু না কিছু বিকৃতরুচির মন্তব্য করে সবসময় মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে এবং সংবাদ শিরোনামে থাকতে চায়। এই রাজ্যে ওনার দলেরই এক crude সংস্করণের মন্তব্যে রাজ্যবাসী যার-পর-নাই ক্ষুব্ধ, বিরক্ত। এর উপর এনার এহেন মন্তব্য ওনার দলের দৈন্যতাই প্রকাশ করে।

আসুন আমরা সকলে সোচ্চার হয়ে এর প্রতিবাদ করি এবং দাবি করি এই মন্তব্যের জন্য উনি যেন ক্ষমা চান।”

আরো পড়ুনঃ পরকীয়ার সাজা কেবল পুরুষ দের জন্যেই কেন হবে?

রইল ভিডিওঃ

কলমে : ঐক্যযোদ্ধা সৌম্য চৌধুরী

- বিজ্ঞাপন -