পথশিশু ও দুঃস্থ পথচারী দের জন্য খাবার আর আবীর প্রদানের মাধ্যমে দোল উৎসব পালনের অনন্য উদ্যোগ বাঙালি বৈদ্য সমাজের।

দোলের আগে আবীরের প্যাকেট এবং খাবারের প্যাকেট পেয়ে যারপরনায় আনন্দিত কল্যানী স্টেশনের আশেপাশে থাকা দুঃস্থ বাচ্চারা। প্রতিবারের ন্যায় এবারেও দুঃস্থ দের সাথেই দোল উৎসব পালন করা হলো - বললেন সভাপতি ব্রহ্মা সেনগুপ্ত

2
566
- বিজ্ঞাপন -

নিউজ ডেস্কঃ কল্যাণী স্টেশনের আশেপাশে থাকা দুঃস্থ শিশু সহ বেশ কিছু বিশেষ ক্ষমতা সম্পন্ন মানুষের হাতে বাঙালি বৈদ্য সমাজের উদ্যোগে দোল উৎসব উপলক্ষে তুলে দেওয়া হয় আবীর এবং খাবারের প্যাকেট। বাদ যান নি বৃদ্ধ বৃদ্ধারাও।

আরো পরুনঃ আন্তর্জাতিক নারী দিবসে আমরি হাসপাতাল ও বাঙালি বৈদ্য সমাজ সম্মানিত করল সমাজের বিভিন্ন কৃতি মহিলাদের

- বিজ্ঞাপন -

আরো পরুনঃ বুদ্ধদেব দাশগুপ্তর ই-শুভেচ্ছা আর মাধবী মুখোপাধ্যায়ের আশীর্বাদ সহকারে মুক্তি পেল বাইলেন

সমাজের সভাপতি শ্রী ব্রহ্ম সেনগুপ্ত জানান, কোভিড জনিত কারণে গত বছরে কোন অনুষ্ঠান তেমনভাবে পালন না করা গেলেও এবার সমস্ত বিধি মেনেই দুঃস্থ মানুষের হাতে সামান্য খাবার আর আবীরের প্যাকেট তুলে দিয়ে প্রত্যেক বছরের ন্যায় এবারেও দোল উৎসব পালনের এই উদ্যোগ বাঙালি বৈদ্য সমাজের।

সাধারণতঃ পয়লা বৈশাখ, দোল, দীপাবলি, বড়দিনের ন্যায় বিশেষ দিনিগুলি বৈদ্য সমাজ পালন করে থাকে সমাজের বিভিন্ন অঞ্চলের দুঃস্থ মানুষের সাথেই। তাঁদের জন্য নতুন জামাকাপড়, খাবার ইত্যাদির সাথে সাথে উৎসব পালনের সামগ্রীও প্রদান করা হয় ফি বছর – বলেন সম্পাদক শ্রী বিরেশ্বর দাশগুপ্ত

আরো পরুনঃ  বাঙালি জাতীয়তাবাদ শুধু আবেগ নয়, বাঁচার লড়াই - সুলগ্না দাশগুপ্ত

আরো পরুনঃ ভোটের দামামা আর কোভিড কে মাত করেই উদ্বোধন গড়িয়াহাট সঙ্গীত মেলা – আহারে বাহারে

কোষাধক্ষ্যা তানিয়া সেনগুপ্ত সরকার জানান, এই ধরণের বিশেষ দিনগুলোতে এই দুঃস্থ মানুষগুলোর মুখে সামান্য হাসি ফুটিয়ে তোলাটাই অন্যতম উদ্দেশ্য বৈদ্য সমাজের সকল সদস্যদের। সকলের অনুদান নিয়েই তা করা সম্ভব হয়। সদস্যা মোহনা সেনগুপ্ত জানান যে এই ধরনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পেরে নিজে গর্ববোধ করেন।

আরো পরুনঃ সফেদ ঝুট বিজেপি র। সরানো হল বিজ্ঞাপন, কুলুপ কর্মী সমর্থকদের মুখে… ঘর না পেলেও রাতারাতি ফেমাস লক্ষী দেবী।

আরেক সদস্যা অজন্তা দাশগুপ্ত জানান নিজস্ব ক্ষমতা অনুসারে তো অনেকেই উৎসব পালন করেন, তবে এভাবে পথশিশুদের সাথে বিভিন্ন উৎসব উদযাপনের আনন্দের অনুভুতি অন্যরকম। গত ৩১শে জানুয়ারীও তাঁরা ৫০ জন দুঃস্থ মানুষের হাতে তুলে দিয়েছেন শীতবস্ত্র।

আরো পরুনঃ দক্ষিনেশ্বরে ৩০০ দুঃস্থ মানুষের জন্য খাবারের আয়োজন করল বেলঘড়িয়া দিশা ওয়েলফেয়ার সোসাইটি। রইল ভিডিও

বিশ্বব্যাপী বৈদ্যদের নিয়ে গড়ে ওঠা এই সংগঠন ২০১৬ থেকেই জাতি ধর্ম নির্বিশেষে সাধারণ মানুষের প্রয়োজনে, সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানোর সাধ্যমতো চেষ্টা করে চলেছে। কোভিড ১৯ এর লকডাউনে অথবা আমফন ঝড়ের কারণে দুর্গতদের পাশে তাঁরা সাধ্যমতো দাঁড়িয়েছে। আগামীতেও এই প্রয়াস চালু থাকবে।

আরো পরুনঃ  আগস্ট ২০২০ তে ৩০ লাখ না এক কোটী? ভারতে সংক্রমণ কত হবে? কোভিড ১৯ এর ভারত যাত্রা!

আরো পরুনঃ ১৮,৩৪,১৮৫ টাকার মাছের বকেয়া না মিটিয়ে উল্টে পাওনাদারদের নামেই কিডন্যাপিং এর অভিযোগ। কোটী টাকা তছরুপীতে অভিযুক্ত কেয়া ও #শেষ_অনির্বাণ

- বিজ্ঞাপন -

2 মন্তব্যগুলি