Thursday, June 24, 2021

শেয়ার বাজারের কেনাকাটা 24/05/2020

অবশ্যই পরুনঃ

অমিত গুপ্ত

বর্তমান KOVID- 19 এর দুর্যোগ সময়ে শেয়ার বাজারের হাল হকিকতের বিশেষ আলোচনা করা হলো।

মোটামুটি ভাবে KOVID19 জনিত ঘর বন্দী অবস্থায় ও সার্বিক ভাবে সচেতনতা বুদ্ধির শুভ প্রচেষ্টায় ও সরকারের আন্তরিক নিরবচ্ছিন্ন চেষ্টায় আমারা সচেতনতার বিষয়ে অনেকেই ইমুউন হয়ে গেছি। তাই আসুন এবার শেয়ার বাজারের দিকে চোখ ফিরিয়ে দেখি ওখান কার কি কর্মকান্ড চলছে।

আরো পরুনঃ  ক্রমাগত সুদের হার কমানো কতটা যুক্তি সঙ্গত

নিফ্টি, সেনসেক্স বিগত কয়েক সপ্তাহ ধরে বড় মাপের রক্ত ক্ষরন করে ক্রমাগত অধোগতিতে বহে চলছে। অবলীলা ক্রমে শেয়ার বাজারের এর টেকনিকাল কনসেপ্ট গুলিকে হেলায় মাড়িয়ে দিয়ে সার্পোট/ রেসিষ্টান্স কথা গুলির গুরুত্ব অনেকাংশে ম্লান করে নিফ্টি ১২০০০ এর লেভেল থেকে নেমে ৯০০০ আশে পাশে ঘোরা ফেরা করছে।

ইনভেষ্টার/ট্রেডারস দের বৃহদাংশেরই এখন মূল মন্ত্র Sell on rise, book profits বা digest the loss before witnessing many more loss in coming day.

একমাত্র bond market ছাড়া stock market এর সব জায়গাতেই এক চিত্র। আশ্চর্যের বিষয় এই যে এবারের বুলিয়ান মার্কেটের সূচকও অধোগতিতে। শেয়ার মার্কেট পড়লে বড় ফান্ড ম্যানেজাররা সাধারনত ফান্ড টা নিরাপদ সেক্টরে রেখে দেয়।

আরো পরুনঃ  শেয়ার বাজারের হাল হকিকত – 12/7/2020 – অমিত গুপ্ত

যাই হোক শেয়ার বাজারের এই তমসাচ্ছন্ন অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে দেখা যাচ্ছে যে মোটামুটি সবগুলি সূচকই যার মধ্যে বড়/মাঝারি/ছোট এর অন্ত্রভুক্ত প্রায় সব স্টক গুলিই বিপুল পরিমান মেদ ঝড়িয়ে ট্রেন্ড রিভারসল করেছে। টাকার অঙ্কে প্রায় 20 লক্ষ কোটি টাকা। অবশ্য অপসন মার্কেটে “পুট “খেলোয়াড়রা দের বিত্ত বৃদ্ধি হয়েছে।

নিফ্টি ও ব্যাঙ্ক নিফ্টি ইত্যাদির পতন এখনও অব্যাহত। প্রায় সিংহভাগ Stock STOCHASTIC METHOD অনুযায়ী চলছে ও RSI (Relative Strength Indicator –“indicate sell momentum” ) Over Sold position Indicate করছে।

বাস্তব সত্য যে বেশির ভাগ blue chip এর 50% এর বেশী রিট্রসমেন্ট হয়েছ এবং ফিবোনিচি র important level 0.382 বা 0.618 এর কাছাকাছি আছে এবং কেও কেও আবার ৩৬৫ দিনের মুভিং এ্যভারেজকে কে ভঙ্গ করে তার তলায় এসেছে।

আরো পরুনঃ  হেলপ্পস - বিনামুল্যে অক্সিজেন, ডাক্তারি পরামর্শ, কোভিডে প্রয়োজনীয় সামগ্রী প্রদানের সাথে সাথে পারিযায়ী শ্রমিক দের ঘরে ফেরানোর উদ্যোগ নিলেন দেব, রাজদীপ রা।

এতদবস্থায় বাজারের তলানি বা Bottom out Position এখনো পাওয়া গেছে কিনা বলা যাচ্ছেনা। আশাকরা যায় বিশ্বের পারিপার্শিক পরিস্থিতি আগামী কয়েক দিনে কিছুটা সংযত হলে হয়তো শেয়ার বাজার তার নিন্মগতি রোধে সক্ষম হবে। সেক্ষেত্রে নিফ্টর ক্ষেত্রে ৯০০০ লেভেলে খুব গুরুত্বপূর্ন।

আরো পরুনঃ  রাজনীতিতে ভোট রঙ্গ - অমিত গুপ্ত

এমতাবস্থায় চপি ট্রেন্ডে রেজ্ঞবাউন্ড হয়ে ৯০০০ লেভেলে কিছু দিন চলতে থাকবে যদিও শেয়ার বাজার ফাটকা বাজির পীঠস্থান বলে স্টক স্পেসিফিক, হাই বিটা স্টক গুলিতে যথেষ্ট ভোলাটিলিটি দেখা যাবে সেক্ষেত্রে Sebi যতই নিয়ম পরিমার্জন করুক না কেন আবহমান কাল চিত্র একই থাকবে তাইতো শেয়ার বাজারকে ডাইসি ( পিচ্ছিল) বাজার বলা হয় এখানেই মানুষ হড়কায়।

Low Spending index, Purchasing power index, High NPA. UNEMPLOYENT Rate etc. উল্টো দিক দিয়ে বলা যায় ভারতীয় শেয়ার বাজারে Nifty র অবস্থান ১২০০০ এর ওপর হয়েছিল একান্ত ইমোসোনাল সেন্টিমেন্টে তারিত হয়ে আর্থ সামাজিক অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে নয় বলেই অনেকেরই অভিমত।

“লোভে পাপ, পাপে মূত্যু”। ধৈর্য বুদ্ধি জ্ঞান ও ভাগ্য এখানে টিঁকে থাকার মূল মন্ত্র। যাইহোক একটা কথা বলা যেতেই পারে যে ভারতের বর্তমান আর্থসামাজিক দিক নির্দেশক গুলির সাপেক্ষ শেয়ার বাজারের অবস্থা সামঞ্জস্য পূর্ণ বলা যায়। যেমন low GDP, IIP growth, High CPI (Inflation 7.9%)।

ঘোষনা:- আমার বা আমার পরিবারর শেয়ার বাজারের সাথে প্রত্যক্ষ ভাবে জড়িত বা স্বার্থ নেই.

- Advertisement -

আরো প্রতিবেদন

একটি মতামত জানান

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

- Advertisement -

সদ্য প্রকাশিতঃ