fbpx
27 C
Kolkata
Tuesday, October 19, 2021
- বিজ্ঞাপন -
- বিজ্ঞাপন -

মা দুর্গার আরেক রূপ দেবী গন্ধেশ্বরী পূজিত হন বিশেষতঃ গন্ধবণিক মহলে

- বিজ্ঞাপন -
- বিজ্ঞাপন -
- বিজ্ঞাপন -
- বিজ্ঞাপন -

শুভদীপ সিনহা, ডিজিটাল ডেস্কঃ “দেবী গন্ধেশ্বরী” বাঙ্গালীর বারো মাসে তেরো পার্বণের অন্যতম গন্ধেশ্বরী পূজা। গন্ধেশ্বরী হলেন সুগন্ধ (perfume) বহনকারী দেবী আর তাঁকে শক্তিরই এক রূপ মনে করা হয়।

বৈশাখ পূর্ণিমার দিন মূলতঃ গন্ধবণিক সম্প্রদায়ের মানুষেরাই এই পূজা করে থাকেন। গন্ধবণিক সম্প্রদায় এই দিন দেবীর সামনে তাঁদের ব্যবসায়িক সামগ্রী, হিসাব খাতা, ওজন যন্ত্র রেখে তাঁদের ব্যবসায়ের সমৃদ্ধি প্রার্থনা করেন। শ্রী শ্রী চণ্ডী তে আদি শক্তি পরমেশ্বরী দেবীগনে পরিবৃত হয়ে যখন শুম্ভাসুরের সাথে যুদ্ধ করছিলেন, তখন শুম্ভ দেবীকে ক্রুদ্ধ হয়ে বলে, “রে অহঙ্কারী ! তুমি অন্য দেবীদের সাহায্য নিয়ে যুদ্ধ করে চলেছ। অতি মানিনী হোয় না।

আরো পরুনঃ ভারতীয় রাজনীতির আঙ্গিনায় ক্রিমিনাল দের অধিপত্য

“তা শুনে মহাশক্তি বললেন, ” একৈ বাহং জগত অত্র দ্বিতীয়া কা মমাপরা।” —
আমি ছাড়া এ জগতে দ্বিতীয় কে আছে ? দেখ, এই সব-ই আমার বিভুতি। তাই এরা সবাই আমার মধ্যে লীন হচ্ছে। এরপর সকল দেবী মূল আদি শক্তির
মধ্যে বিলীন হলেন। শাক্তমতে , এর তাৎপর্য হল এই যে , ভিন্ন রূপে প্রতীয় মান হলেও , তত্ত্বতঃ সব কিছুই মহাশক্তির বহিঃ প্রকাশ। আরও একটি তথ্য পাই যে সকল দেবী , একটি মহা শক্তি হতে নির্গত হয়েছেন। মনসা, চণ্ডী, ষষ্ঠী, শীতলা , বন দুর্গা , বহুচেরা, ভেরুন্ডা, মহগ্রতারা, প্রজ্ঞা পারমিতা, বেন তেন সহ ভারত ও অভারতীয় পূজিত বা অধুনা বিস্মৃত দেবীকুল এক আদি শক্তি থেকে জাত হয়েছেন। গন্ধেশ্বরী-ও তার ব্যতিক্রম নন। সিংহ বাহিনী , ত্রিনয়নী, চতুর্ভুজা , শঙ্খ ,চক্র , ধনুক, বাণ ধারিণী -এই দেবী বনিক কুলের কুল দেবী। হিন্দু- বৌদ্ধ নির্বিশেষে তাঁর পূজা , এক কালে বঙ্গীয় বনিক দের নানা শাখায় অনুষ্ঠিত হত বুদ্ধ পূর্ণিমার দিন।

বাংলাদেশের পাহাড় পুর বৌদ্ধ বিহারে, অন্যান্য হিন্দু দেব দেবীর সাথে গন্ধেশ্বরীর -ও একটি মূর্তি আছে। তবে সেটি ওই বৌদ্ধ বিহারের মত খুব প্রাচীন নয়। দেবীকে প্রণাম করে আসুন প্রার্থনা করি, যাতে বাঙালির ব্যবসা বানিজ্যে উন্নতি হয়। দেবী গন্ধেশ্বরী মন্দির, গন্ধেশ্বরী ঘাট, বাঁশবেড়িয়া, হুগলি, পশ্চিমবঙ্গ। গঙ্গার পাড়ে কয়েকশো বছরের পুরনো এই শহরের প্রাচীন নাম অবশ্য বংশবাটী।

আরো পরুনঃ  বারুইপুর পুলিশ জেলার উদ্যোগে গোসাবা থানার ব্যবস্থাপনায় 'ইয়াস' বিধ্বস্ত সুন্দরবনবাসীর দুবেলার খাবারের জন্য আমাদের প্রয়াস -"দুবেলার হেঁসেল"

আরো পরুনঃ বাণিজ্যনগরী কলকাতার স্রষ্টা কি বাঙালি তন্তুবণিক শেঠ-বসাক পরিবার? ডাঃ তমাল দাশগুপ্ত


খামারপাড়া, শিবপুর, বাঁশবেড়িয়া এবং ত্রিবেণি এই চার অঞ্চল নিয়ে গড়ে ওঠে এই শহর। চুঁচুড়া, চন্দননগর, বলাগড়, গুপ্তিপাড়া, পাণ্ডুয়া, পোলবা ছাড়াও বর্ধমান এবং গঙ্গার উল্টোদিকে নদিয়া, কল্যাণী, কাঁচরাপাড়া এবং হালিশহর থেকেও গন্ধেশ্বরী মন্দিরের দর্শনার্থীরা আসেন। ব্যান্ডেল থেকে ৪ কিমি দূরের বাঁশবেড়িয়ায় আসা যায় ট্রেনে। হাওড়া থেকে সোজা বাঁশবেড়িয়ায়। তাই ট্রেনে চুঁচুড়ায় এসে সেখান থেকেও বাসে বা মিনিবাসে আসা যায়।শিয়ালদহ থেকে ট্রেনে নৈহাটি এসে গঙ্গা পেরিয়ে চুঁচুড়া হয়েও আসা যায়। থাকার জন্য বাঁশবেড়িয়া পুরসভার অতিথিশালা আছে।

আরো পরুনঃ  করোনা যুদ্ধে জয় করার পরেও ভারতের 'উড়ন্ত শিখ' চলে গেলেন স্ত্রীর মৃত্যুর ৫ দিনের মধ্যেই

আরো পরুনঃ দ্বিতীয় বল্লালসেন। কে ছিলেন কিংবদন্তীর দ্বিতীয় বল্লালসেন?

গন্ধেশ্বরী পূজার দ্রব্য – প্রতিমা, পুরোহিত বরণ ১, সিন্দুর, পঞ্চগুঁড়ি পঞ্চগব্য, পঞ্চশস্য, পঞ্চরত্ন, পঞ্চপল্লব, ঘট ১, কুন্ডহাঁড়ি ১,তেকাঠা ১, দর্পণ, অধিবাসের ডালা, তীর ৪, সশীষ ডাব ১, একসরা আতপ তন্ডুল, তিল, হরিতকী, পুষ্প ৮, কুচা নৈবেদ্য ১, পুষ্পমাল্য, বিল্ল্বপত্রমাল্য, গন্ধেশ্বরীর শাটী ১, শিবের ধুতি ১, নারায়ণের ধুতি ১,অসুরের ধুতি ১, জয়ার শাটী ১, চণ্ডীর শাটী ১, বিজয়ার শাটী ১, লক্ষীর শাটী ১, চাঁদমালা ১, উপকরণাদি, মিষ্টান্ন, রচনা ১, থারা, ঘটি ১, লৌহ, শঙ্খ, নথ ১ হিঃ, সিন্দুরচুবড়ি ১, ভোগের দ্রব্যাদি, বালি, কাষ্ঠ, খোড়কে, ঘৃত ১ পোয়া, হোমের বিল্ল্বপত্র ২৮, পানের মশলা, পূর্ণপাত্র ১, আরতি, দক্ষিণা।

আরো পরুনঃ আন্তর্জাতিক নারী দিবসে আমরি হাসপাতাল ও বাঙালি বৈদ্য সমাজ সম্মানিত করল সমাজের বিভিন্ন কৃতি মহিলাদের


শাস্ত্রমতে বৈশাখী পুর্ণিমাতে বাণিজ্য শ্রীবৃদ্ধি কামনায় দেবী গন্ধেশ্বরীদুর্গার পুজার বিধান রয়েছে। দেবী গন্ধেশ্বরী দুর্গাদেবীরই এক বিশেষ প্রকাশ। তিনি বৈশ্য বণিক মুলত গন্ধবনিক সম্প্রদায়ের আরাধ্যা দেবী দুর্গা।
তাঁর ধ্যানমন্ত্রেই বলা হয়েছে:
দুর্গা দুর্গতিহারিনী ভবতু নঃ..
অর্থাৎঃ- হে দেবী দুর্গা আপনি আমাদের দুর্গতিহারিনী রুপা হন।
দেবীর ধ্যানমন্ত্রে তাঁকে মরকতমনিপ্রভাময়ী বলা হয়েছে। তিনি শঙ্খ চক্র ধনুর্বান ধারিনী। দেবী সিংহারুঢ়া।

মা দুর্গাই হলেন গন্ধেশ্বরী । ইনি ধন সম্পদ রক্ষা করেন । মা লক্ষ্মী রূপে ধন দান করেন । কিন্তু ধন রক্ষা করতে হবে । তাই মা মহামায়া ,গন্ধেশ্বরী রূপে প্রকট হয়েছেন । ধন যিনি দেন , ধনের রক্ষা তিনিই করেন । দেবী গন্ধেশ্বরী বৈশ্য অর্থাৎ বণিক দের পূজিতা । কারন বণিকরা ব্যবসা বাণিজ্য করেন ।

আরো পরুনঃ  বিপ্লবী রাসবিহারী বসুর ১৪০ তম জন্মদিবসের শ্রদ্ধার্ঘ্য।।

এর পৌরাণিকী কথা-

” প্রতি বছর বৈশাখী পূর্ণিমাতে প্রত্যেক গন্ধবণিকের গৃহে শ্ৰীশ্ৰীগন্ধেশ্বরী দেবীর পূজা হয়ে থাকে।

এই গন্ধেশ্বরী দেবী সাক্ষাৎ ভগবতী দুর্গা। চতুর্ভুজা সিংহবাহিনী মূৰ্ত্তিতে ইনি গন্ধেশ্বরী দেবী রূপে আবিভূর্তা হয়ে গন্ধাসুরকে বধ করেন। সেই কারণে এনার নাম গন্ধেশ্বরী হয়।

আরো পরুনঃ হেলপ্পস – বিনামুল্যে অক্সিজেন, ডাক্তারি পরামর্শ, কোভিডে প্রয়োজনীয় সামগ্রী প্রদানের সাথে সাথে পারিযায়ী শ্রমিক…

সুভূতির ঔরসে ও তপতী-নাম্নী রাক্ষসীর গর্ভে গন্ধাসুর মহাদেবের বরে ত্রিভুবনবিজয়ী ও মহাবলশালী হয়ে জন্মগ্রহণ করে। সুভূতি বৈশ্যকন্যা সুরূপাকে হরণ করিতে গিয়ে বৈশ্যগণ দ্বারা অপমানিত তিরস্কৃত ও হৃতসৰ্ব্বস্ব হয় । পিতার সেই অপমানের প্রতিশোধ নেবার জন্য গন্ধাসুর বৈশ্যবংশ ধ্বংস করতে প্রবৃত্ত হয়। তার অনুচরগণ একদিন সুবর্ণবট নামক এক বৈশ্যকে বধ করলে, তার পূর্ণগর্ভা পত্নী চন্দ্রাবতী গর্ভস্থ শিশুকে রক্ষা করবার জন্য অরণ্যে প্রবেশ করেন। পথশ্রমে ক্লান্ত হয়ে তিনি অরণ্য-মধ্যে একটি কন্যা প্রসব করে গতানু হন। সৰ্ব্বজ্ঞ মহর্ষি কশ্যপ ধ্যানযোগে চন্দ্রাবতীর গর্ভে দেবী বসুন্ধরার অংশাবতার জন্মগ্রহণ করিয়াছেন অবগত হয়ে তাঁকে স্বকীয় আশ্রমে আনয়নপূর্ব্বক কন্যানিৰ্ব্বিশেষে প্রতিপালন করতে লাগিলেন। গুণজ্ঞ মহর্ষি সেই দিব্য সৌরভময়ী কন্যার গন্ধবতী নাম রাখিলেন ।

আরো পরুনঃ “আমরা মানবিক” দত্তপুকুর সংলগ্ন কোভিড আক্রান্ত মানুষের পাশে অক্সিজেন – খাবার – প্রয়োজনীয় সামগ্রী নিয়ে।

আরো পরুনঃ  ভোট-পরবর্তী সহিংসতা: পশ্চিমবঙ্গ হাইকোর্টের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে যায়

“ যৌবনোন্মুখী গন্ধবতী পিতার নিধন ও অরণ্য মধ্যে মাতার শোচনীয় মৃত্যুর কারণ অসুরগণের বিনাশকামনায় মহামায়ার তপস্যায় প্রবৃত্ত হলেন ।

গন্ধাসুর গন্ধবতীর অলৌকিক রূপ লাবণ্যের কথা জানে গন্ধবতীকে লাভ করবার জন্য সসৈন্যে তার আশ্রমে উপনীত হল। কিন্তু অসুরের চাটুবাদ বা ভীতিপ্রদর্শনে সেই তপোনিমগ্না গন্ধবতীর ধ্যানভঙ্গ হইল না। তখন ক্রুদ্ধ অসুর সবলে গন্ধবতীর কেশাকর্ষণ করিল, কিন্তু অসুরতেজ পরাভূত হল, গন্ধাসুর সেই তপ:কৃশা পঞ্চমবর্ষীয়া বালিকাকে যোগাসন থেকে বিচলিত করতে পারল না ।

“ গন্ধবতী বিচলিত হলেন না বটে, কিন্তু তদীয় হোমকুণ্ডস্থ বহ্নিরাশি বিচলিত হল। সহসা সেই বিচলিত বহ্নিরাশি থেকে এক দিব্য তেজ সমুত্থিত হয়ে সমস্ত তপোবনকে দুর্ণিরীক্ষ্য প্রতাপপুঞ্জে উদ্ভাসিত করল। অসুরপতি বিস্মিত ভীত ও মুগ্ধপ্রায় হয়ে সভয়ে কেশমুষ্টি পরিত্যাগ করে বিদ্যুৎবেগে সুদূরে গিয়ে দণ্ডায়মান হইল :

আরো পরুনঃ  জাতীয় শিক্ষক দিবস ঘোষণার দাবিতে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের জন্ম দিবসে ঐক্য বাংলার শ্রদ্ধা জ্ঞাপন

অত্যুৎকট জ্যোতির প্রভাবে সসৈন্যে অসুররাজ ক্ষণকালের জন্য অন্ধীভূত হলেন। অনন্তর দৃষ্টি প্রসন্ন হলে দেখলেন বিদ্যুৎ-তুল্য প্রতাপময়ী সিংহবাহিনী চতুর্ভুজা এক নারীমূৰ্ত্তি হোমকুণ্ড-সমীপে গন্ধবতীর পুরোভাগে দন্ডায়মান রয়েছেন। আর গন্ধবতী স্বকীয় গলদেশে উত্তরীয়-বল্কল অৰ্পণ করে আনতনয়নে সেই দেবদুর্লভ শ্রীপাদপদ্মের অপূৰ্ব্ব সৌন্দৰ্য্যরাশি দর্শন করছেন।”

আরো পরুনঃ এখন আপনার স্মার্টফোন এপ এ মাপুন অক্সিজেন স্যাচুরেশন, হার্ট ও পালস রেট – অভিষেক সেনগুপ্ত, মনসিজ সেনগুপ্ত ও শুভব্রত পালের যুগান্তকারী আবিষ্কার।

অসুর তৎক্ষণাৎ দেবীর সাথে যুদ্ধে প্রবৃত্ত হল। ঘোরতর যুদ্ধের পর দেবী শূলাঘাতে অসুরের প্রাণ বিনাশ করলেন ও তাহার প্রকাণ্ড দেহ সমুদ্ৰ-মধ্যে নিক্ষেপ করলেন। দেবীর ইচ্ছায় সেই দেহ গন্ধদ্রব্যের আকর-ভূমি গন্ধদ্বীপরূপে পরিণত
হল ।

এই গন্ধেশ্বরী দেবীর-একটি উপাখ্যান আছে, তা ভবপুরাণে দেখতে পাওয়া যায়। তাতে গন্ধবতীর কোনও উল্লেখ নেই এবং গন্ধাসুরের বধের কারণও অন্য রূপে বর্ণিত আছে।
সেই উপাখ্যান-ভাগ এইরূপঃ-
“ গন্ধাসুর নারদের মুখে দেবীর অলৌকিক রূপলাবণ্যের কথা শ্রবণ করে মোহিত হয় এবং তাকে পত্নীরূপে লাভের আশা দুরশা ভেবে আশুতোষের কৃপাপ্রার্থী হয়ে কঠোর তপস্যা করে। ভগবান প্রসন্ন হলে, গন্ধাসুর শিবস্বারূপ্য-বর প্রার্থনা করে। আশুতোষ অসুর-রাজের অভিলষিত বরই অর্পণ করলেন । অসুর বরপ্রাপ্তিমাত্র রজতগিরিনিভ চারুচন্দ্রাবতংশ দিব্য শৈব মুৰ্ত্তি পরিগ্রহ করল। কিন্তু প্রকৃতিতে সেই অসুর-ভাবই অক্ষুণ্ণ রইল। তখন অসুর মহাদেবের পরোক্ষে কৈলাসে গমন পূৰ্ব্বক দাক্ষায়ণীকে প্রার্থনা করল। দেবী অসুরের দুরাশা দেখে মনে মনে হাস্য করে যুদ্ধে তার প্রাণ বিনাশ করিলেন । দেবীর ইচ্ছায় গন্ধাসুরের দেহ গন্ধমাদন পৰ্ব্বতরূপে পরিণত হল। দানবের ভিন্ন ভিন্ন অঙ্গ থেকে ভিন্ন ভিন্ন গন্ধদ্রব্যের উৎপত্তি হয়েছিল। অনন্তর দেবগণ দ্বারা দেবী পূজিত হয়ে গন্ধেশ্বরী নামে বিখ্যাত হলেন।”

আরো পরুনঃ পথশিশু ও দুঃস্থ পথচারী দের জন্য খাবার আর আবীর প্রদানের মাধ্যমে দোল উৎসব পালন

- বিজ্ঞাপন -
আরো পরুনঃ  মমতা ভবানীপুর থেকে প্রচার শুরু করেন
- বিজ্ঞাপন -

আরো পরুনঃ

এন শ্রীনিবাসন: ‘ধোনি ছাড়া সিএসকে নেই এবং সিএসকে ছাড়া ধোনি নেই’

খবরএকজন খেলোয়াড় হিসেবে ধোনির ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত, কিন্তু ইঙ্গিত দিচ্ছে যে তিনি ফ্র্যাঞ্চাইজির সাথে কিছু ক্ষমতায় থাকবেন খেলোয়াড় হিসেবে তিনি চেন্নাই সুপার কিংসের অংশ হোন বা...

কেন আমরা এখনও সেলিম ডাইনি ট্রায়াল নিয়ে এতই আচ্ছন্ন

দ্য দোষী সাব্যস্ত হওয়া প্রথম ব্রিজেট বিশপ ছিলেন একজন -০ বছর বয়সী মহিলা, যাকে ১9২ সালের জুন মাসে ফাঁসিতে ঝোলানো হয় যা পরে গ্যালোস...

বাবুল সুপ্রিয় আনুষ্ঠানিকভাবে এমপি পদ থেকে ইস্তফা দেন

গায়ক থেকে রাজনীতিবিদ হয়ে বারবার জোর দিয়েছিলেন যে তিনি এমপি হিসাবে চালিয়ে যেতে চান না কারণ তিনি আর সেই দলের সদস্য ছিলেন না যার...
- বিজ্ঞাপন -

অল্ট সোশ্যাল মিডিয়াঃ

237সমর্থকমত
6অনুগামিবৃন্দঅনুসরণ করুন
অনুগামিবৃন্দঅনুসরণ করুন
2অনুগামিবৃন্দঅনুসরণ করুন
10গ্রাহকদেরসাবস্ক্রাইব
- বিজ্ঞাপন -

অলিম্পিক ২১ঃ

জিমন্যাস্টিক স্টারস মার্কিন অলিম্পিক পরিচালকদের বহিষ্কারের আহ্বান জানান

ওয়াশিংটন star ল্যারি নাসার যৌন অপব্যবহার কেলেঙ্কারির অভিযোগে সংগঠনের বোর্ড ভেঙে দেওয়ার জন্য কংগ্রেসকে অনুরোধ করে মার্কিন অলিম্পিক ও প্যারালিম্পিক কমিটির ওপর বুধবার একদল...

মতামত | বেজিং টোকিওর অলিম্পিক ভুলের পুনরাবৃত্তি করতে প্রস্তুত

টিম ইউএসএ টোকিও অলিম্পিকে একটি সাফল্য অর্জন করেছে, যার নেতৃত্বে সাঁতারু ক্যালেব ড্রেসেলের পাঁচটি স্বর্ণপদক। বিলম্বিত টোকিও ২০২০ গেমসের বড় বিজয়ী অবশ্য চীনা...

অলিম্পিক যত কাছে আসছে, চীনের পুরুষদের হকি দল নিয়ে উদ্বেগ অব্যাহত রয়েছে

এক বছরে যেখানে এনএইচএল ২০২২ সালের শীতকালীন অলিম্পিকে শর্তসাপেক্ষে ফিরে আসার ঘোষণা দিয়েছিল, তার বদলে অনেক কথাবার্তা স্বাগতিক দেশ চীনকে ঘিরে রেখেছিল। চীন কোন NHLers...

2022 শীতকালীন অলিম্পিকে স্কি জাম্পিং

সম্ভবত মানুষের উড়ানের সবচেয়ে কাছের জিনিস, স্কি জাম্পিং খেলোয়াড়দের বাতাসের মধ্য দিয়ে চলাচল করার ক্ষমতা পরীক্ষা করে - এবং নিরাপদে অবতরণ করে - একটি...

সদ্য প্রকাশিতঃ